A card trick, you wouldn't ever seen


তাসের নাম ডিমের ভেতর 

প্রথমে মঞ্চে দাঁড়িয়ে বললেন—সমবেত দর্শকমণ্ডলী! আপনারা ভালভাবেই। জানেন, আমি এখানে যাদুবিদ্যা দেখিয়ে আপনাদের মনােরঞ্জন করতে এসেছি। এখন। আমি আপনার মনােরঞ্জনের জন্য একটা খেলা দেখাব, যা দেখে আপনারা খুবই বিস্মিত হয়ে পড়বেন। খেলাটা হল—আপনাদের সামনে টেবিলের ওপর উপুড় করা একটি তাস, যা আপনারা বা আমি—কেউই দেখিনি। কিন্তু সেই তাসটির নাম একটা সিদ্ধ ডিমের খােলা ছাড়ালেই আপনারা দেখতে পাবেন। অবাক হচ্ছেন নিশ্চয়ই? তাহলে দেখুন, আমি আপনাদের খেলাটি দেখাচ্ছি।।

এক প্যাকেট তাস নিয়ে দর্শকদের সমেনে ভালভাবে সাফ করে নিন। এরপর সমবেত দর্শকদের উদ্দেশ্যে বললেন—উপস্থিত দর্শকমণ্ডলী! আপনাদের মধ্যে থেকে যে কেউ একজন এক থেকে তেরাের মধ্যে যে কোনাে একটি সংখ্যা ভাবুন এবং আমার কাছে তা প্রকাশ করবেন না। এবার আমার হাতের এই সাফ করা তাসগুলাে থেকে একটি করে তাস টেবিলের ওপর রাখব এবং আপনি তাসগুলাে গুণতে। থাকবেন। যখন আপনার মনে করা সংখ্যার তাসটি আমার হাতে আসবে, তখন আমাকে স্টপ করতে বলবেন। এইভাবে আপনি যখন এক-একটি তাস টেবিলে রাখবেন, তখন দর্শকদের একজন গুণতে থাকবে। যখন সে প্রথমে ভেরে নেওয়া। সংখ্যাটির কাছে আসবে, তখনই সে স্টপ করতে অর্থাৎ থামতে বলবে। 

আপনাকে থামতে বলার সঙ্গে সঙ্গে আপনি সেই তাসটি তান্য সব তাসের থেকে আলাদা করে বাকী তাসগুলি টেবিলের ওপর উপুর করে রেখে দিন। এবার দর্শকদের উদ্দেশ্যে বলুন—ভদ্রমােহদয়গণ! আপনাদের সামনে যে তাসটি আমি আলাদা করে রেখেছি, তা আমি বা আপনারা কেউই দেখেন নি। এবার একটি প্লেটে করে টেবিলের ওপর আগে থেকেই আনা একটি ডিম দর্শকদের দেখিয়ে বলুন—আপনারা আমার হাতে একটি ডিম দেখতে পাচ্ছেন; এটা একটা সেদ্ধ ডিম। এখন এর ওপরের খােলাটা ছাড়িয়ে নিলে ওই তাসটা কি, তা জানতে পারবেন। এই বলে ডিমটি আপনি নির্দিষ্ট দর্শকটির হাতে দিয়ে দিন। দর্শকটি ডিমটি হাতে নিয়ে দেখতে পাবে যে, সেটা একটা সাধারণ এবং স্বাভাবিক ডিম। এরপর দর্শকটি ডিমের খােলাটি ছাড়িয়ে ফেললেই দেখবে ভেতরে সাদা অংশের গায়ে লেখা থাকবে তাসের নামটি। এই দৃশ্য দেখে উপস্থিত দর্শকবৃন্দ বিস্ময়ে হতবাক হয়ে যাবে। তাছাড়া আপনার যাদুবিদ্যার ক্ষমতা দেখে সবাই হাততালি দিয়ে উঠবে।

এবার দেখুন, খেলাটি কেমনকৌশলে দেখানাে হচ্ছে।
প্রথমেই তাসের প্যাকেটের মধ্যে কৌশল করা আছে। সেটা হল—ওই প্যাকেটটি থেকে তেরােটা তাস বার করে একই রকমের যে কোন তেরােটা তাস ঢুকিয়ে রেখে দিন। মনে করুন, তেরােটি তাসই রুহিতনের পাঁচ। ওই তেরােটি একই রকমের তাস জোগাড় করতে আপনাকে তেরাে প্যাকেট তাস কিনতে হবে। তবে লক্ষ্য রাখবেন, এই তাসের পিছনদিকগুলাে যেন একই রকম দেখতে হয়। তা না হলে ধরা পড়ার ভয় আছে। ওই তেরােটি রুহিতনের পাচ তাসের প্যাকেটের সামনে দিকে রেখে দিন। এবার মঞ্চে দাঁড়িয়ে দর্শকদের সামনে আপনি তাসগুলাে যখন সাফল করবেন, তখন বা হাতের তালুর ওপর ওই তেরােটি তাস উপুড় করা অবস্থায় ধরা থাকবে। সাফল করার সময় কিন্তু খুব সাবধান ওপরের দিক থেকে এমনভাবে শাহতল করবেন, যাতে বাঁ হাতের তালুর ওপর ধরা তেরােটি রুহিতনের পাঁচ অন্যান্য তাসের সঙ্গে ঘেঁটে না যায়।

 এরপর দর্শকটির সংখ্যা গােনার সঙ্গে সঙ্গে বাঁ হাতে ধরা রুইতনের পাঁচ তাসগুলি নিচের দিক থেকে অর্থাৎ উপুড় করা তাসের =vE3 সামনের দিক বা তাসের যেদিকটি কাচের পাত্রে ভিনিগারে ডিমের ভেতরের অংশে লেখা তাসের নাম হাতের তালুর মধ্যে বন্দি ছিল, ভেজানাে ফিটারী সেদিক থেকে এক এক করে টেবিলে রাখতে থাকুন। তাহলে এবার বুঝতেই পারছেন--যে তাসগুলাে আপনি টেবিলে রাখছেন, সে সবই হল রুহিতনের পাঁচ এক স্ট করার সঙ্গে সঙ্গে যে তাসটি আলাদা করে রাখবেন, সেটাও হবে রুহিতনের পাঁচ।। এরপর আপনি যখন দর্শকটির হাতে ডিমটি দিলেন, তখন সে ডিমটি ঘুরিয়ে- ফিরিয়ে ভালােভাবে দেখলাে, সেটা সাধারণ একটি ডিম। তারা কিন্তু কেউই ডিমটার কোনাে কৌশল ধরতে পারবেন না। কিন্তু দেখুন, ডিমটার মধ্যে কি কৌশল করা আছে।

প্রথমে একটা কাচের পাত্রে খানিকটা ভিনিগার নিয়ে তাতে কয়েক টুকরাে ফিটকারী ভিজিয়ে দিন। দেখবেন, সেটা গুলে গিয়ে একটা চমৎকার সলিউসন জাতীয় পদার্থ তৈরী হয়েছে। এরপর একটা তুলির সাহায্যে সলিউশন দিয়ে একটা কাচা ডিমের শক্ত খােলার ওপর রুহিতনের পাঁচ কথাটি লিখে দিন, অর্থাৎ যে তেরােটি রুহিতনের পাঁচ নিয়ে। আপনি খেলা দেখাচ্ছেন, তার নাম। লেখাটা শুকিয়ে যাবার পর ডিমটি ভালভাবে সিদ্ধ করে নিলে দেখা যাবে—ওই লেখাটি ডিমের শক্ত খােলা ভেদ করে ডিমের ভেতরের সাদা অংশের গায়ে ছাপ পড়ে যাবে। সুতরাং ডিমটা দর্শকদের হাতে দিলে তারা শত চেষ্টা করেও ওপর থেকে কিছুই দেখতে পাবে না। 

তাহলে এতক্ষণে খেলাটা কেমন হবে, বুঝতে নিশ্চয়ই পারছেন। কিন্তু একটা কথা মনে রাখবেন—অনেক সময় ডিমের খােলা ছাড়াতে গিয়ে ভেতরের সাদা অংশের চাক্লা উঠে আসে। এই কারণে খােলা ছাড়াবার সময় খুব সাবধানে ছাড়াতে হবে।

Post a Comment

0 Comments